এলজিআরডি মন্ত্রীকে রাসিকের সংবর্ধনা

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় (এলজিআরডি) মন্ত্রী তাজুল ইসলামকে নাগরিক সংবর্ধনা দিয়েছে রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক)।

শনিবার রাতে নগরভবন গ্রিন প্লাজায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তিনি। রাসিক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন। অনুষ্ঠানে এলজিআরডি মন্ত্রীর হাতে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন রাসিক মেয়র।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এলজিআরডি মন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দারিদ্রমুক্ত সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন নিয়ে দেশ স্বাধীন করেন। কিন্তু দুঃখের বিষয় বঙ্গবন্ধু সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের সময় পাননি। তবে পরবর্তীতে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে কাজ করে চলেছেন। গ্রামে-গঞ্জে বিদ্যুৎ পৌঁছে গেছে, সেবা-খাত বৃদ্ধি পেয়েছে, খাদ্যে স্বয়ংসম্পন্ন হয়েছে, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন হয়েছে, সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় তরুণরা আইটি সেক্টর অনেক এগিয়ে গেছে, মাথাপিছু আয় বৃদ্ধি পেয়েছে।

সভাপতির বক্তব্যে রাসিক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, মন্ত্রীকে আমরা সিটি করপোরেশনের উন্নয়ন কার্মক্রম দেখালাম। আমরা মন্ত্রীকে কৃতজ্ঞতা জানাই। তিনি আমাদের অনেক কিছু দিয়েছেন, এলজিআরডি মন্ত্রী হিসেবে তার কাছে আমাদের আরও চাওয়া আছে। আশা করি তিনি রাজশাহীর উন্নয়নে আগামীতেও সহযোগিতা করবেন।

মেয়র আরও বলেন, রাজশাহীকে বদলে দিতে মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে কাজ করে যাচ্ছি। রাজশাহীর উন্নয়ন দৃশ্যমান হয়েছে। ইতোমধ্যে তিন হাজার কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন হয়েছে। এই প্রকল্প বাস্তবায়নের পাশাপাশি আরও নতুন নতুন প্রকল্প গ্রহণ করা যাচ্ছে। আগামী কয়েক বছরে মধ্যে রাজশাহীর আমূল পরিবর্তন হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ। তিনি বলেন, সারা বিশে^র মধ্যে রাজশাহী ক্লিন সিটি গ্রিন সিটি হিসেবে পরিচিত। এটি রাজশাহীর জন্য অনন্য একটি অর্জন। ২০১৮ সালে নির্বাচনের পর আজকে রাজশাহী এসে অবাক হলাম, নান্দনিক সড়ক ও সড়কবাতি। এই অর্জনের নেপথ্যে মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন।

অনুষ্ঠান মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী-৩ আসনের এমপি আয়েন উদ্দিন, রাজশাহী-৫ আসনের এমপি ডা. মনসুর রহমান, সংরক্ষিত আসনের এমপি আদিবা আঞ্জুম মিতা, রাসিক মেয়রপত্নী ও মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শাহিন আকতার রেনী, রাজশাহীর বিভাগীয় কমিশনার ড. হুমায়ুন কবীর, রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি আব্দুল বাতেন, রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার সুজায়েত ইসলাম, জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল, জেলা পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর রুহুল আমিন প্রামাণিক, রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান প্রফেসর তানবিরুল আলম, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মেরাজ মোল্লা, রাসিকের ২২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল হামিদ সরকার টেকন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন রাসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এবিএম শরীফ উদ্দিন। রাসিকের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প সংক্রান্ত তথ্য উপস্থাপন করেন রাসিকের সাবেক প্রধান প্রকৌশলী আশরাফুল হক।