জুনের মধ্যে টিকা পাবে দেশের ২০ শতাংশ মানুষ: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

আগামী জুনের মধ্যে দেশের ২০ শতাংশ মানুষকে করোনার টিকা দেয়া যাবে। এমনটা জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

রবিবার (২৭ ডিসেম্বর) দুপুরে, রাজধানীর মহাখালীতে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের দুটি ভ্যাকসিন ল্যাব পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের একথা জানান তিনি। প্রথমে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের গবেষণাগার পরিদর্শন করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহেদ মালেক। সম্প্রতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিবেচনায় স্বীকৃতি পেয়েছে পরীক্ষাগারটি। পরে, ভ্যাকসিন গবেষনার জন্য নির্মিত ল্যাবও পরিদর্শন করেন তিনি। এই গবেষনাগারেই দেশের নয়টি রোগের ভ্যাকসিনের মান পরীক্ষা হয়। এসময় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের উধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পরিদর্শন শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাংবাদিকদের জানান, কোভিড নাইনটিন ভ্যাকসিন কেনার আনুষ্টানিকতা শেষ হয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমতির পর জানুয়ারির শেষ অথবা ফেব্রুয়ারির শুরুতেই আসবে ভ্যাকসিন।

জাহিদ মালেক বলেন, ‘কোবিড ভ্যাকসিন যেটা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বাংলাদেশকে দিবে যেটা কমিটমেন্ট করেছে, আশা করি যখন ৯২টি দেশে কোভিড ভ্যাকসিন দিবে বাংলাদেশও তার পপুলেশনের ২০ শতাংশের জন্য পাবে। সেটাও আমরা জুনে আশা করছি।’

নতুন ভাইরাস নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, এরই মধ্যে সার্বিক প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। বিমানবন্দরগুলোতে বাড়তি সতকর্তার পাশাপাশি পশ্চিমাদের ভালোভাবে স্বাস্থ্য পরীক্ষার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

জাহিদ মালেক আরো বলেন, ‘আমাদের এয়ারপোর্ট স্ক্রিনিং আরো জোরদার করেছি। ইউরোপ থেকে যারা আসবে তাদের জন্য সেপারেট লাইন করতে বলেছি। এবং যারা সার্টিফিকেট ছাড়া আসবে তাদেরকে ৭ দিন কোয়ারেন্টিন করতে বলা হয়েছে।’

দেশের কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে অনেকে না জেনেই মন্তব্য করছেন মন্তব্য করে মন্ত্রী দাবি করেন, বাংলাদেশ দক্ষতার সঙ্গে কোভিড পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে কাজ করছে।