ম্যারাডোনার নামে নামাঙ্কিত নাপোলি স্টেডিয়াম

পুরো বিশ্বকে শোকের সাগরে ভাসিয়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন আর্জেন্টাইন ফুটবল কিংবদন্তি দিয়াগো ম্যারাডোনা। ২৫ নভেম্বর আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েন্স আয়ার্সে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন কিংবদন্তি এই ফুটবলার। ম্যারাডোনাকে এখনও স্মরণ করে চলেছেন বর্তমান সময়ের ফুটবলাররা।

এসবের মাঝেই ইতালির বিখ্যাত ফুটবল ক্লাব নাপোলির হোমগ্রাউন্ড নামাঙ্কিত করা হল ম্যারাডোনার নামে। স্তাদিও সান পাওলো স্টেডিয়াম শুক্রবার থেকে নাম বদলে আত্মপ্রকাশ করল স্তাদিও দিয়াগো আর্মান্দো ম্যারাডোনা নামে। নতুন নামকরণের পর আগামী ১০ ডিসেম্বর কৌলিবালি, ড্রায়েস মার্টেন্সরা স্তাদিও দিয়াগো আর্মান্দো ম্যারাডোনা স্টেডিয়ামে নিজেদের প্রথম হোম ম্যাচটি খেলবেন।

নাপোলি ফুটবল ক্লাবের একদা অবিসংবাদী ফুটবল নায়ক দিয়াগো ম্যারাডোনা। ফুটবল ঈশ্বরের মৃত্যুর পরেই স্তাদিও সান পাওলো স্টেডিয়ামের নাম বদলে দিয়াগো ম্যারাডোনার নামে নামাঙ্কিত করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছিল ন্যাপেলস সিটি কাউন্সিল। ন্যাপেলস সিটি কাউন্সিল এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘অপরিসীম প্রতিভা এবং ফুটবল জাদু দিয়ে প্রয়াত দিয়াগো ম্যারাডোনা নাপোলি ক্লাবের জার্সিকে একদা সমৃদ্ধ করেছিলেন। দু’টি ঐতিহাসিক চ্যাম্পিয়নশিপ খেতাব ছাড়াও অন্যান্য ট্রফি দিয়ে গোটা শহরের ভালোবাসা উনি আদায় করে নিয়েছিলেন।

আর্জেন্টাইন চ্যাম্পিয়নের এইসব খেতাব জয় শুধু নাপোলি ক্লাবের জন্য ছিল না বরং গোটা শহরটার জন্য ছিল। এই শহর পরিচিতি পেয়েছে তাঁর জন্যই।’

নাপোলি ক্লাব এক সংক্ষিপ্ত বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘দিয়াগো ম্যারাডোনার নামে স্তাদিও সান পাওলো নামকরণের যে সিদ্ধান্ত ন্যাপেলস সিটি কাউন্সিল গ্রহণ করেছে তাতে তারা যারপরনাই উচ্ছ্বসিত।’ দিয়াগো ম্যারাডোনার মৃত্যুর ঠিক পরেই নাপোলি স্টেডিয়ামের নামকরণের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় এবং ন্যাপেলস শহরের মানুষ একবাক্যে এই সিদ্ধান্তকে সমর্থন জানান।