‘নাশকতায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে’

বাসে নাশকতায় জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে, বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।
শনিবার (১৪ নভেম্বর) রাজধানীতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ঢাকা-১৮ উপ-নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এই সহিংসতা হতে পারে। কিছু কথোপকথন পাওয়া গেছে, সেখান থেকে দেখা যায় যে ফলাফল মেনে নিতে পারেনি বলেই তারা (বিএনপি) এমনটি করেছে। যেখানেই তারা পরাজিত হয়েছে সেখানেই তারা নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চায়। যারা এ অগ্নিসংযোগ করেছিলেন, ভিডিও ফুটেজের মাধ্যমে অনেকজনকে আমরা চিহ্নিত করেছি। সিসিটিভি ফুটেজ দেখে তাদের চিহ্নিত করে আমরা তাদের আইনের কাছে সোপর্দ করেছি। নিরাপত্তা বাহিনী তৎপর রয়েছে।

আসাদুজ্জামান খাঁন আরো বলেন, গোয়েন্দাদের ব্যর্থতা নেই। তাদের তৎপরতা চলছে বলেই এখন দেশ শান্তিতে রয়েছে। আমরা এতটুকু বলতে পারি দেশে আমরা কোন অরাজক পরিস্থিতি হতে দিবো না। সরকারি এজেন্টরা এই ঘটনা ঘটিয়েছেন এই বক্তব্যের কোনো সত্যতা আছে বলে মনে করেন না স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

এদিকে, রাজধানীতে বাস পোড়ানোর ঘটনায় এ পর্যন্ত ১৪টি মামলা ও ৩২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এদের মধ্যে রিমান্ডে নেয়া হয়েছে ২৮ জনকে। ডিএমপি জানিয়েছে, বাসে আগুন দেয়ায় দাহ্য পদার্থ ব্যবহৃত হয়েছে। গান পাউডার নাকি পেট্রোল বোমা সেটি রিপোর্ট পেলে পরে জানা যাবে। রাজধানীতে পুলিশি টহল ও চেকপোস্ট বাড়ানো হয়েছে।

অন্যদিকে, এ ঘটনায় প্রতিবাদ সমাবেশে বিএনপি দাবি করেছে গাড়িতে আগুন দিয়ে বিএনপির ওপর দোষ চাপাচ্ছে আওয়ামী লীগ সরকার। বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা ও গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল মামলা প্রত্যাহার ও গ্রেপ্তারকৃতদের মুক্তির দাবি জানান।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার (১২ নভেম্বর) বৃহস্পতিবার (১২ নভেম্বর) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউর আওয়ামী লীগ অফিসের সামনের একটি রাস্তাসহ রাজধানীর ৯টি এলাকায় ১০টি বাসে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর মতিঝিল, বংশাল, শাহবাগ, ভাটারা ও উত্তরা থানায় দায়ের করা হয়েছে বেশ কয়েকটি নাশকতার মামলা।