বৃহস্পতিবার দেশে ফিরছেন সাকিব

আগামী বৃহস্পতিবার দেশে ফিরছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। সাকিবের ঘনিষ্ঠ এক নির্ভরযোগ্য সূত্র, সোমবার (৩ নভেম্বর) জানিয়েছে, দেশে আসার পরপরই মিরপুরের হোম অব ক্রিকেটে অনুশীলন শুরু করবেন সাকিব।

দেশে ফিরে করোনা টেস্ট করাবেন। ফলাফল নেগেটিভ আসলে কয়েক দিনের কোয়ারেন্টিন শেষে মিরপুর শের-ই বাংলা স্টেডিয়ামে অনুশীলন করতে পারেন।

সামনেই বঙ্গবন্ধু কর্পোরেট টি-টোয়েন্টি আসর। সাকিবকে পেতে মুখিয়ে আছে দলগুলো। প্লেয়ার ড্রাফটে নির্ধারণ হবে কোন দলে খেলবেন বিশ্বসেরা। কিন্তু, তার আগে সাকিবকে উত্তীর্ণ হতে হবে ফিটনেস টেস্ট। কারণ বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড-বিসিবি আগেই জানিয়েছে, ফিটনেস টেস্টে উত্তীর্ণ হলেই প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে অংশ নিতে পারেন তিনি।

সাকিব ফিটনেস টেস্টে উত্তীর্ণ হবেন। এ ব্যাপারে খুব একটা সন্দেহ নেই। কারণ সেপ্টেম্বরে বিকেএসপিতে কঠোর অনুশীলনে তার ফিটনেস উন্নতিতে মুগ্ধ হয়েছিলেন সাকিবের দুই ক্রিকেট গুরু নাজমুল আবেদীন ফাহিম ও মোহাম্মদ সালাউদ্দিন।

এক বছরের নিষেধাজ্ঞা শেষে আসন্ন টুর্নামেন্টেই সাকিবকে আবারও তার পুরোনো রূপে দেখার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা।

এর আগে, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ খেলতে যাওয়ার জন্য সাকিব যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফিরে ঢাকার বিকেএসপিতে সেপ্টেম্বরে মাসব্যাপী ব্যক্তিগত প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছিলেন। তবে, কোভিড-১৯-এর বিধিনিষেধের কারণে শ্রীলঙ্কা সফর স্থগিত হয়ে গেলে পরিবারকে সময় দিতে গত ১ অক্টোবর যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে যান সাকিব।

এদিকে, আসছে ৮ নভেম্বর সাকিবের বড় মেয়ে আলাইনার জন্মদিন। কিন্তু আগেভাগে দেশে আসবেন বলে প্রিয় সন্তানের জন্মদিন তিনদিন আগে উদযাপন করেছেন পরিবারের সাথে যুক্তরাষ্ট্রে।

উল্লেখ্য, ক্রিকেট থেকে তার এক বছরের নিষেধাজ্ঞা গত ২৯ অক্টোবর শেষ হয়েছে। ২০১৯ সালের ২৯ অক্টোবর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল সাকিব আল হাসানকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করে। যার মধ্যে এক বছর স্থগিত নিষেধাজ্ঞা। অর্থাৎ প্রথম বছর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের নজরদারিতে ছিলেন সাকিব এবং সেই এক বছর পূর্ণ হয়েছে। এখন সাকিব দলে সুযোগ পেলেই বাংলাদেশ বা যে কোনো পেশাদার লিগে ক্রিকেট খেলতে পারবেন।